1. admin@dailygrambangla.com : admin :
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৩১ অপরাহ্ন

সোনারগাঁও সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের দুই সভাপতি !

  • আপডেট : রবিবার, ২৭ মার্চ, ২০২২
  • ৫০১ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-

সোনারগাঁও সরকারী কলেজের ছাত্রলীগের দেখা দিয়েছে পূর্বের ন্যায় বিভক্তি। কলেজটিতে ছাত্র সংগঠনের ক্ষেত্রে একটি কমিটির নেতৃত্ব দেয়ার কথা থাকলেও বর্তমানে কলেজটি দুই জন সভাপতি দাবি করে নিজেদের কমিটিকে বৈধ কমিটি বলে দাবি করে ফেষ্টুন ব্যানার লাগিয়েছেন। এ নিয়ে দুগ্রুপের সভাপতিই বলছেন তাদের কমিটির বৈধতা রয়েছে। এক কমিটির সভাপতি হচ্ছেন সজল চন্দ্র ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক হলে অনি আলম। অপরদিকে অন্য কমিটির সভাপতি হলেন জাহিদ হাসান নিলয় ও সাধারণ সম্পাদক হলেন আসিকুর রহমান আসিক।

জানাগেছে, সোনারগাঁ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী কলেজ সোনারগাঁও সরকারী কলেজ (যা সোনারগাঁও ডিগ্রী কলেজ) নামে পরিচিত ছিল। সোনারগাঁয়ে কলেজ শিক্ষা বলতে শিক্ষার্থীরা এ কলেজ থেকে বিদ্যাপাঠ শুরু করেছেন। ১৯৬৯ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রথম দিকে কলেজটি ছাত্র রাজনীতি না থাকলে এরশাদ সরকার আন্দোলনে আগ থেকে কলেজটিতে ছাত্রলীগের ছাত্র রাজনীতি শুরু হয়।এর থেকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ছাত্ররা ছাত্রলীগের রাজনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে গেছেন। এদিকে গত কয়েক বছর ধরে বিশেষ করে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর থেকে কলেজ ছাত্রলীগের মধ্যে দেখা দেয় বিভক্তি। সে সময় থেকে মুল দলের গ্রুপিংয়ের সাথে সাথে কলেজ শাখার ছাত্রলীগেও দেখা দেয় গ্রুপিং। সম্পতিকালে কিছুদিন আগে সজল চন্দ্র ঘোষ সভাপতি ও অনি আলম সাধারণ সম্পাদক বলে দাবি করে কলেজ অধ্যক্ষর কাছে আংশিক কমিটি জমা দেন। এদিকে, নবীর বরন অনুষ্ঠানকে সামনে রেখে কলেজের বিভিন্ন ফেষ্টুন ব্যানারে জাহিদ হাসান নিলয় নিজেকে সভাপতি দাবি করেন। এনিয়ে কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে দেখা দিয়েছে টানাপোড়া।

এ ব্যাপারে কলেজ ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি দাবীকারী সজল ঘোষ জানান, ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি আজিজুল ইসলাম আজিজ ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসমাইল রাফেল এর স্বাক্ষরিত চিঠিতে আমাকে সভাপতি ও অনি আলমকে সাধারণ সম্পাদক করেছেন কিন্তু আরেকটি পক্ষ নিজেকে স্বঘোষিত সভাপতি দাবি করে আমাদের কলেজের কাজে বাঁধা প্রদান করছে।

এ ব্যাপারে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি দাবিকারী জাহিদ হাসান নিলয় জানান, কলেজ গভানিং বর্ডির সদস্যরা আমাদের কলেজ ছাত্রলীগের দায়িত্ব দিয়েছেন। অপরদিকে আরেকটি পক্ষ কলেজ শাখার অনুমোদন এনে নিজেদের কলেজের ভিপি দাবি করছেন। তারা যদি কমিটি দাবি করে তাহলে নির্বাচনে আসুক দেখি কারা নির্বাচনে জয় লাভ করে। তিনি আরো জানান, তারা ছাত্রলীগের সভাপতি দাবি করেন কিন্তু তাদের কেউ চেনে না। তারা কলেজে আসেনা অথচ তারা বলে আমরা নাকি তাদের কলেজে প্রবেশ করতে দেইনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ © দেশ প্রকাশ ©
Theme Customized By Theme Park BD